রক্তাক্ত মিয়ানমার, এক হাসপাতালেই ৩৪ মরদেহ


টাইমস আই বেঙ্গলী ডটনেট, আন্তর্জাতিক ডেস্ক: অভ্যুত্থান পরবর্তী মিয়ানমার সহিংসতায় বিপর্যস্ত । রবিবার দেশটির বাণিজ্যিক রাজধানী ইয়াঙ্গুনের উপশহর লাইংথায়ায় পুলিশের গুলিতে অন্তত ৩৮ জন নিহত হয়েছে। সেখানকার একটি হাসপাতালেই অন্তত ৩৪টি মরদেহ রয়েছে। বিক্ষোভকারীদের ওপর আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর হামলায় হাসপাতালটিতে আরও ৪০ জনকে আহত অবস্থায় ভর্তি করা হয়েছে। স্থানীয় সংবাদসংস্থা মিয়ানমার নাউ এ খবর দিয়েছে।


মিয়ানমারের মানবাধিকার সংস্থা অ্যাসিস্ট্যান্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনার্স (এএপিপি) বলছে, লাইংথায়া শহরতলিতে সামরিকবাহিনীবিরোধী বিক্ষোভকারীদের ওপর নিরাপত্তাবাহিনী গুলিবর্ষণ করায় কমপক্ষে ২২ জন নিহত হয়েছেন। ইয়াঙ্গুনে চীনা অর্থায়নে পরিচালিত কয়েকটি পোষাক তৈরির কারখানায় অজ্ঞাত দুর্বৃত্তদের অগ্নিসংযোগের পর নিরাপত্তাবাহিনী গুলিবর্ষণ করে। রবিবার ইয়াঙ্গুনসহ মিয়ানমারের বিভিন্ন প্রান্তে অভ্যুত্থানবিরোধীদের বিক্ষোভে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর হামলায় অন্তত ৩৮ জনের প্রাণহানি ঘটে।

যা গত ১ ফেব্রুয়ারির অভ্যুত্থানের পর একদিনে সর্বোচ্চ প্রাণহানি। এর আগে এই দেশটিতে জান্তাবিরোধী বিক্ষোভে নিরাপত্তাবাহিনীর গুলিতে একদিনে সর্বোচ্চ প্রাণহানির ঘটনা ঘটে গত ৩ মার্চ। ওইদিন মিয়ানমারজুড়ে অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভকারীদের ওপর নিরাপত্তাবাহিনীর সহিংসতায় ২৮ জনের প্রাণহানি ঘটে বলে জানিয়েছে থাইল্যান্ডভিত্তিক মিয়ানমারের সংবাদমাধ্যম দ্য ইরাবতি। এএপিপির এক পরিসংখ্যান বলছে, ১ ফেব্রুয়ারির অভ্যুত্থানের পর থেকে মিয়ানমারে চলমান বিক্ষোভে এখন পর্যন্ত ১৩৮ জন নিহত হয়েছেন।


আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচের এশিয়া অঞ্চলের উপ-পরিচালক ফিল রবার্টসন এক বিবৃতিতে বলেছেন, তাজা গোলায় অভ্যুত্থানবিরোধীদের মৃত্যুর সংখ্যা ভয়াবহভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশটির নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরা কীভাবে বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করতে উৎসাহ পাচ্ছে তা তুলে ধরছে। খবর রয়টার্স।

print

Leave a Reply