বাংলাদেশে মৌসুমের প্রথম ঝড়-বৃষ্টি

টাইমস আই বেঙ্গলী ডটনেট, ঢাকা : বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় শনিবার বিকেল সোয়া ৪টার দিকে ধূলিঝড় ও বৃষ্টি হয়েছে। দমকা হাওয়ার সাথে তুমুল বৃষ্টি হয়েছে। এর আগেই সকালে ঢাকার বাইরে কোথাও কোথাও হালকা থেকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হয়েছে। বিশেষ করে উত্তরাঞ্চল এবং পূর্বাঞ্চলের দুই-এক জায়গায় বৃষ্টির খবর পাওয়া গেছে।
জানা গেছে, অন্যান্য বছর ডিসেম্বরে খানিকটা বৃষ্টির দেখা মেলে। জানুয়ারি থেকে মার্চেও কিছু কিছু বৃষ্টি হয়। তবে এবারের চিত্র ভিন্ন। বছরের প্রথম বৃষ্টির দেখা মিলল ফাল্গুনের বিকালে। শনিবার বিকেলে রাজধানীর আকাশ হঠাৎ ঢেকে যায় কালো মেঘে। দুপুর থেকেই বৃষ্টি নামবে নামবে ভাব করছিল। গতকাল বিকেল সোয়া ৪টা নাগাদ শুরু হয় ধূলিঝড়, সঙ্গে দমকা হাওয়া। কিছুক্ষণ পরই এক পশলা বৃষ্টি শান্ত করেছে প্রকৃতিকে। রোববার দুপুরের মধ্যে ঢাকা বিভাগসহ আরো কিছু অঞ্চলে দমকা হাওয়াসহ ঝড় বৃষ্টির শঙ্কা রয়েছে। এর মধ্যে তাপমাত্রা কিছুটা কমলেও আজ দুপুরের পর আবারও তাপদাহ ছড়িয়ে পড়তে পারে অনেক অঞ্চলে।
শনিবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল সীতাকুণ্ড ও রাঙামাটিতে ৩৬ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা গত সপ্তাহের রোববার ছিল বদলগাছিতে ৩৪ দশমিক ৫। এই হিসেবে এক সপ্তাহে দেশে তাপমাত্রা বেড়েছে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মতো।
আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ এবং এর আশেপাশের এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। এর প্রভাবে রংপুর, রাজশাহী, খুলনা ঢাকা ও সিলেট বিভাগের দুই এক জায়গার ওপর দিয়ে অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্য এলাকায় আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।
এছাড়া বিভাগীয় শহরগুলোর মধ্যে ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৩ দশমিক ৭, ময়মনসিংহে বেড়েছে ৩২ দশমিক ৫, চট্টগ্রামে ৩২ দশমিক ৯, সিলেটে ৩৩ দশমিক ৮, রাজশাহীতে ৩৪, রংপুরে ৩১ দশমিক ৩, খুলনায় তাপমাত্রা ৩৩ দশমিক ২ এবং বরিশালে ৩২ দশমিক ২ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিলো।
আবহাওয়াবিদ আব্দুল মান্নান বলেন, শনিবার দেশের উত্তরাঞ্চল ও পূর্বাঞ্চলের কোথাও কোথাও ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা কোথাও কোথাও গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হয়েছে। ঢাকাসহ দেশের মধ্যাঞ্চলের আকাশ এখন মেঘলা। বাতাসের জ্বলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেশি হওয়ার কারণে গরম বেশি অনুভূত হয়। বৃষ্টি হলে এই গুমোট ভাব কমে আসে। আজ রোববার দুপুর পর্যন্ত এই আবহাওয়া বিরাজ করবে। এরপর আবার কড়া রোদের দেখা পাবেন রাজধানীবাসী।
এদিকে আবহাওয়ার দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসেও বলা হয়, চলতি মাসে স্বাভাবিক অপেক্ষা কম বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে। এ মাসে উত্তর, উত্তর-পশ্চিম ও মধ্যাঞ্চলে এক থেকে দুই দিন বজ্র ও শিলাবৃষ্টিসহ মাঝারি ধরনের বা তীব্র কালবৈশাখী ঝড় এবং দেশের অন্য এলাকায় দুই থেকে তিন দিন বজ্র ও শিলাবৃষ্টিসহ হালকা বা মাঝারি ধরনের কালবৈশাখী ঝড় হতে পারে।

print

Leave a Reply