বিনোদন

দীঘির অভিযোগে যা বললেন পরিচালক রাফি

বিনোদন ডেস্ক : চিত্রনায়িকা প্রার্থনা ফারদিন দীঘির অভিযোগের জবাব দিয়েছেন নির্মাতা রায়হান রাফি। তিনি মনে করেন, আলোচনায় আসার জন্যই তার বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন দীঘি। সম্প্রতি নিজের অফিসে ডেকে মৌখিকভাবে সিনেমার জন্য ঢালিউডের উঠতি অভিনেত্রী প্রার্থনা ফারদিন দীঘির সঙ্গে আলাপ চূড়ান্ত করেন এক তরুণ নির্মাতা। পরে তাকে কিছু না জানিয়েই তার পরিবর্তে অন্য আরেকজনকে নায়িকা হিসেবে বেছে নেওয়া হয় বলে জানান দীঘি।

জানা গেছে, ছয় মাস আগে একটি সিনেমার বিষয়ে দীঘির সঙ্গে কথা বলেছিলেন নির্মাতা। সম্প্রতি নিজের অফিসে ডেকে মৌখিকভাবে দীঘির সঙ্গে আলাপও চূড়ান্ত করেছেন। কিন্তু শেষ মুহূর্তে দীঘিকে বাদ দিয়ে সেখানে তমা মির্জাকে নিয়েছেন রাফি। দীঘিকে বাদ দেওয়ার বিষয়টি তাকে জানানোর প্রয়োজনও মনে করেননি নির্মাতা। যদিও কোথাও রাফির নাম বলেননি এ নায়িকা।

দীঘি বলেছিলেন, একজন তরুণ নির্মাতা আমাকে তার চলচ্চিত্রে কাস্ট করেছিলেন। শুধু লিখিত চুক্তি বাকি ছিল। কিন্তু আমাকে না জানিয়েই সেখানে অন্য একজন শিল্পীকে নেন। এটি খুবই অন্যায়। এর আগেও একাধিকবার তিনি এ কাজ করেছেন। আমি নাম বলতে চাই না, আমি ন্যাচারাল রিভেঞ্জে বিশ্বাস করি।

রাফির এমন মনে করা প্রসঙ্গে দীঘি বলেন, দেখলাম গণমাধ্যমে উনি বলেছেন— আমি আলোচনায় আসতে এমনটা করেছি। আমি কি আলোচনায় আসব…, আমি তো জন্ম থেকে স্টারকিড, উনি আলোচনায় আসার কথা বলেন; নায়িকা হওয়ার আগে আমার ঘরে তিন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। আর উনার নাম নিয়ে কে কবে আলোচনায় এসেছে…?

দীঘি বলেন, প্রথমত আমি স্ট্যাটাসের বাইরে কোনো পরিচালকের নাম বলিনি। গণমাধ্যম তাদের সূত্র দিয়ে এক পরিচালকের নাম বের করেছে। তিনি এখন আমার নাম উল্লেখ করে বক্তব্য দিচ্ছেন। ওই পরিচালক যে শুধু একটি সিনেমা নিয়ে আমার সঙ্গে এমনটা করেছেন তা নয়, উনি উনার একাধিক প্রজেক্ট নিয়ে আমার সঙ্গে এমন করেছেন। মিটিং করেছেন, ডেট ফাঁকা রাখতে বলেছেন, আমি রেখেছি; তার পর সেই সময় কল দিলে তিনি আমার ফোন ধরেন না। মৌখিকভাবে চূড়ান্ত করেছেন তার পর আমাকে সেটি না জানিয়ে বাদ দিয়েছেন। এসবের সব প্রমাণ আমার কাছে আছে। একটা প্রজেক্টে বাদ দিয়েছে, সে জন্য আমি কথা বলছি এমন নয়। একই কাজ উনি হয়তো অনেকের সঙ্গে করেছেন। উনি কেন নায়িকা নির্বাচনে প্রতিবার এমন করেন সেটি রহস্যজনক। আমার সাহস আছে বলে আমি কথা বলেছি।

জানা গেছে, আলফা আই ও চরকি প্রযোজিত নির্মিত হতে যাওয়া ‘সুড়ঙ্গ’ সিনেমায় মৌখিকভাবে চূড়ান্তের পর শেষ মুহূর্তে দীঘিকে বাদ দিয়ে সিনেমাটির পরিচালক রায়হান রাফি চিত্রনায়িকা তমা মির্জাকে চুক্তিবদ্ধ করিয়েছেন।

এ কারণে গত রোববার দিবাগত রাত ৩টার দিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে নানা অভিযোগ করেন।

দীঘি লেখেন, তুমি জানো একা তারকা শিশু হওয়ার লড়াই, যার মূল তারকাই তার সঙ্গে নেই। প্রায় সময়ই আমি অনেকের পোস্ট দেখি যে, তারা নতুন হিসেবে কাস্ট হচ্ছে। তখন আমি হাসি, মানুষ কেন মিথ্যা আশা দেয় আরেকজনকে, যেখানে তারা আমার ওপর ও আমার দক্ষতা নিয়ে সন্তুষ্ট নয়…।

তিনি বলেন, যারা নতুন প্রজেক্টে নতুন জার্নি শুরু করতে যাচ্ছে, তাদের সঙ্গে আমার কোনো বিরোধ নেই। কিন্তু ওই ধরনের ভুয়া মানুষের কথা শুনতে শুনতে আমি ক্লান্ত, যারা আমাকে মিথ্যা আশা দেয় এবং দিনশেষে আমাকে অপমানিত করে।

দীঘি আরও বলেন, আমাদের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির লোকেরা বিশ্বের সবচেয়ে বেশি নিষ্ঠুর। আমার কোনো অনুশোচনা নেই। কেননা আমি আমাকে চিনি, জানি আমার দক্ষতা সম্পর্কে। যারা সত্যি আমাকে ভালোবাসেন, তাদের দোয়া আমার সঙ্গে আছে এবং আমি আল্লাহর ওপর ভরসা রাখি।

এ নায়িকা বলেন, আমার এই লেখার কোনো উদ্দেশ্য নেই। এটি সবাই জানেন। আর এই ক্ষোভ আমি তিন বছর ধরে বুকে পুষে চলেছি। আমি একেবারে ক্লান্ত ও অসুস্থ হয়ে পড়েছি এই সিন্ডিকেটের খেলায়, দুঃখিত।

নিজের প্রথম ‘কাবুলিওয়ালা’ সিনেমায় অভিনয় করে দীঘি জিতে নিয়েছিলেন শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার।

২০২১ সালের ১২ মার্চ নায়িকা হিসেবে তার অভিষেক হয়। এর পর আরও একটি সিনেমা মুক্তি পায় তার। বর্তমানে হাতে আছে বেশ কিছু সিনেমা ও ওয়েব ফিল্ম।

সূত্র: যুগান্তর।

Related Articles

Back to top button