বাংলাদেশে করোনায় একদিনে ৭৭ জনের সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড

টাইমস আই বেঙ্গলী ডটনেট, ঢাকা: রাজধানীসহ সারাদেশে মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২৪ ঘণ্টায় আরো ৭৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯ হাজার ৬৬১ জনে। ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে ৫৩ জন পুরুষ এবং ২৪ জন নারী। এ সময়ে নমুনা পরীক্ষায় নতুন আরো ৫ হাজার ৩৩৪ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে মোট শনাক্ত হওয়া রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৯৩৭ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন তিন হাজার ৮৩৭ জন। তাদের নিয়ে এখন পর্যন্ত সুস্থ পাঁচ লাখ ৭২ হাজার ৩৭৮ জন।
শনিবার (৯ এপ্রিল) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।
স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয় ২৫ হাজার ১৮৫টি। অ্যান্টিজেন টেস্টসহ নমুনা পরীক্ষা করা হয় ২৬ হাজার ৭৭টি। এখন পর্যন্ত ৪৯ লাখ ৭৩ হাজার ৪৮৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।
স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্যমতে, শনাক্ত বিবেচনায় গত ২৪ ঘণ্টায় প্রতি ১০০ নমুনায় ২০ দশমিক ৪৯ শতাংশ এবং এখন পর্যন্ত ১৩ দশমিক ৬৫ শতাংশ শনাক্ত হয়েছেন। শনাক্ত বিবেচনায় প্রতি ১০০ জনে সুস্থ হয়েছেন ৮৪ দশমিক ৩০ শতাংশ এবং মারা গেছেন এক দশমিক ৪২ শতাংশ।
গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ৫৩ জন পুরুষ এবং নারী ২৪ জন। এখন পর্যন্ত পুরুষ ৭ হাজার ২২৬ জন এবং নারী মৃত্যুবরণ করেছেন দুই হাজার ৪৩৫ জন।
বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৬০ বছরের ওপরে ৪৪ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ২২ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে পাঁছ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুই জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে তিন জন এবং ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে এক জন মারা গেছেন। বিভাগ বিশ্লেষণে দেখা যায়, মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে মারা গেছেন ৫১ জন, চট্টগ্রামে ১৫ জন, রাজশাহীতে তিন জন, খুলনায় দুই জন, বরিশালে এক জন, রংপুরে চার জন এবং সিলেটে একজন মারা গেছেন।
উল্লেখ্য, গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম তিন জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ার কথা জানায় সরকার। এর ঠিক ১০ দিন পর প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগীর মৃত্যুর খবর জানানো হয়। আজকের আগে গত এক বছরে কোনও দিনই ৭৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি। এর আগে গত বৃহস্পতিবার ৭৪ জনের মৃত্যুর খবর জানানো হয়।
এদিকে, গত ২৯ মার্চ আগের এক বছরের রেকর্ড ভেঙে করোনা শনাক্ত হন পাঁচ হাজার ১৮১ জন, সেই রেকর্ড ভেঙে ৩১ মার্চ শনাক্ত হন পাঁচ হাজার ৩৮৫ জন। ১ এপ্রিল ফের নতুন রেকর্ড হয়, শনাক্ত দাঁড়ায় ছয় হাজার ৪৬৯ জনে। ২ এপ্রিল দাঁড়ায় ছয় হাজার ৮৩০ জন। এরপর ৪ এপ্রিল সব রেকর্ড ভেঙে সাত হাজার ছাড়িয়ে একদিনে শনাক্ত হন সাত হাজার ৮৭ জন। ৫ এপ্রিল শনাক্ত হন সাত হাজার ৭৫ জন। ৬ এপ্রিল মঙ্গলবার সাত হাজার ২১৩ জন। এর পরদিন বুধবার শনাক্ত হন সাত হাজার ৬২৬ জন; যেটা এখন পর্যন্ত দেশে একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত। ৮ এপ্রিল শনাক্ত হন ছয় হাজার ৮৫৪ জন। ৯ এপ্রিল করোনা শনাক্ত হন সাত হাজার ৪৬২ জন, যেটা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ শনাক্ত।

 

print

Leave a Reply