তুমি

হাসনাহেনা রানু
তুমি ঠিক এক রাগী ও অভিমানী পুরুষ
যেন ধেয়ে আসা এক বিশাল সমুদ্র
সচ্ছ ও গভীর ! কোটি কোটি ঢেউ এর মত
মনে হয় বুঝি চুরমার করে দেবে আমাকে
কিন্তু যখন কাছে এলে যখন ভাসিয়ে নিলে
আমাকে তোমার বুকের উপর
দম বন্ধ করা উচ্ছ্বাস ও আবেগে
পায়ের তলা থেকে কেড়ে নিলে মাটি
তখন ঠিক ভয় করলো না আমার
একটু কেঁপে উঠলাম ——–
তুমি আমাকে ধরলে শক্ত হাতে
তুমি কি পুরুষ নাকি সমুদ্র —?
কিছুই বুঝতে পারলাম না আমি
আবার ঢেউ এলো তিনটা পর পর
তলিয়ে গেলাম আমি ,
ঢেউ এর অতল গহ্বরে
কিন্তু তুমি আমাকে ফের আঁকড়ে ধরলে শক্ত হাতে
তলিয়ে যেতে দিলে না সমুদ্র বক্ষে বিশাল ঢেউ — এ
আমার তখন রোমহর্ষ হলো মাত্র ———-
কারণ তুমি আছ পাশে জেনে
এতদিন যা ভেবেছি — যা জেনেছি
তার কিছু ঠিক এরকম নয়
কত কোমল তুমি —————-
ফের সযত্নে স্থাপন করলে তুমি আমাকে
আবার সমুদ্র বক্ষে দাঁড় করালে চোরাবালির উপর
ভালো করে ভারসাম্য ফিরে পাওয়ার আগেই
আমাকে ভাসিয়ে নিয়ে গেল বিশাল একটা ঢেউ
তখন ও আমি হারিয়ে যাইনি তোমার দু’বাহু থেকে
আমি বুঝিনা তোমাকে – একটুও বুঝিনা
তুমি ঠিক রাগী ও অভিমানী পুরুষ কিনা ?
সেই ভালো — ও রকম রহস্যময় থাক তুমি আমার কাছে
বিশাল সমুদ্রের ঢেউয়ের মতো বার বার কাঁদাও আমাকে
ভাসাও আমাকে — দগ্ধ করো আমাকে
তুমি ঠিক এক রাগী ও অভিমানী পুরুষ
নাকি সমুদ্রের মতো বিশাল – – – – – – – ——–আমি জানি না ।

print

Leave a Reply