Warning: sprintf(): Too few arguments in /home/timesi/public_html/wp-content/themes/covernews/lib/breadcrumb-trail/inc/breadcrumbs.php on line 254

সুনামগঞ্জ-২ আসনে নৌকার মনোনয়ন লাভের লড়াইয়ে ড. জয়া সেনগুপ্তা ও দীপক চৌধুরী

টাইমস আই বেঙ্গলী ডটনেট, ঢাকা : আগামী নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-২ (দিরাই-শাল্লা) আসনে নৌকার প্রার্থী মনোনয়ন দিতে বিভিন্ন ধরনের বিচার-বিশ্লেষণ, পর্যবেক্ষণ ও জরিপ প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে এখন পর্যন্ত এ আসনে প্রার্থীর মনোনয়ন চূড়ান্ত হয়নি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলের সভাপতিমন্ডলীর একাধিক সদস্য মনে করেন, এই আসনটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশেষ দৃষ্টিতে পর্যবেক্ষণ করছেন। বিশেষ করে সম্ভাব্য দুজন মনোনয়ন প্রত্যাশীর নাম নানা যোগ্যতায় বিবেচিত হচ্ছে। তাঁরা হচ্ছেন প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের স্ত্রী ড. জয়া সেনগুপ্তা ও বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কলামিস্ট দীপক চৌধুরী। এছাড়াও দলের বিষয়ে কার কী ‘কন্ট্রিবিউশন’ রয়েছে তাও মনোনয়ন যোগ্যতায় বিবেচনা করা হবে। অবশ্য স্থানীয়ভাবে কয়েকজন প্রার্থী এই আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাইতে পারেন
সুনামগঞ্জ-২ আসনে গত বছর উপ-নির্বাচনে ড. জয়া সেনগুপ্তা নির্বাচিত হন। রাজনীতিকের স্ত্রী হলেও ব্র্যাকের কর্মকর্তা হিসেবে কর্মজীবনে সবচেয়ে বেশি ব্যস্ত ছিলেন। প্রবীণ পার্লামেন্টারিয়ানের স্ত্রী হিসেবে রাজনীতির প্রতি তার ন্যূনতম আগ্রহ বা আকর্ষণও ছিল না। সম্প্রতি তিনি বিভিন্ন গণমাধ্যমে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, তার এলাকায় কোনো গ্রুপিং নেই। দলের সবার মধ্যে ঐক্য রয়েছে। দিরাই-শাল্লায় তার অনুগত কয়েকজন নেতার আশা আওয়ামী লীগ থেকে তাকে মনোনয়ন দেওয়া হবে।
জানা গেছে, দিরাই-শাল্লার মানুষের সাম্প্রতিক ধারণা আগামী নির্বাচনে এই আসনে অপেক্ষাকৃত তরুণ বুদ্ধিদীপ্ত ও বিশিষ্ট সাংবাদিক দীপক চৌধুরীই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন লড়াইয়ে এগিয়ে আছেন। সুপরিচিত কলামিস্ট ও লেখক-সাংবাদিক হিসেবে আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতাদের কাছের মানুষ তিনি। স্পষ্টবাদী, সৎ ও ক্লীন ইমেজের মানুষ হিসেবেও পরিচিত দীপক চৌধুরী রচনা করেছেন প্রায় ২০টি গ্রন্থ। ১৯৯১ থেকে জাতীয় পত্রিকায় একটানা চার বছর প্রকাশিত হয়েছে তাঁর বিখ্যাত কলাম ‘প্রধানমন্ত্রী বেয়াদবি মাফ করবেন’। এটি অত্যন্ত আলোড়িত ও জনপ্রিয় কলাম ছিল সেই সময়। পরবর্তীকালে ১৯৯৪ সালে ঢাকায় একুশে বইমেলায় ‘প্রধানমন্ত্রী, বেয়াদবি মাফ করবেন’ কলামটি গ্রন্থ আকারে প্রকাশিত হয়। তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী শেখ হাসিনার বহু সভা-সমাবেশ ‘কভার’ করা, সুস্পষ্ট মতামত দিয়ে কলাম লেখার কারণে তিনি এইচ এম এরশাদ এবং খালেদা জিয়ার সরকার আমলে নানামুখী সংকট ও প্রাণহারানোর মুখোমুখি হন। তবে আপসহীন সাংবাদিক দীপক চৌধুরী স্বৈরাচারী এরশাদ সরকার ও বিএনপি-জামায়াতের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে সাংবাদিকতার পেশাগত দায়িত্ব পালন করেছেন। সর্বশেষ তাঁর রচিত ‘দিনবদলে শেখ হাসিনা’ ও ‘কেন টার্গেট শেখ হাসিনা’ গ্রন্থ দুটি একুশের বই মেলায় ঝড় তুলেছে।
রাজনীতি সচেতন মানুষ ও নির্ভীক সাংবাদিক দীপক চৌধুরী ২০১৭ খ্রীস্টাব্দে উপনির্বাচনে দিরাই-শাল্লায় আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন। কিন্তু বিশেষ কারণে তিনি শেষপর্যন্ত ড. জয়া সেনগুপ্তার নৌকার পক্ষে উপনির্বাচনে কাজ করেছেন।

অপরদিকে সরেজমিনে জানা গেছে, সংসদ সদস্যা হওয়ার পর ড. জয়া সেনগুপ্তার স্বল্প সময়ের উপস্থিতি এলাকাবাসীর কাছে বিভিন্ন নেতিবাচক প্রশ্নের উদ্রেক করেছে। দিরাই ও শাল্লার কয়েকজন ব্যবসায়ী মনে করেন, বর্তমান এমপি জয়া সেনগুপ্তার ভাঙা শরীর ও দুর্বল স্বাস্থ্যের কারণ বিবেচনায় নিয়ে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া উচিৎ হবে। স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে ধারনা পাওয়া গেছে, বার্ধক্যজনিত কারণে সামাজিক অনুষ্ঠানে ড. জয়া সেনগুপ্তার অনুপস্থিতিও তাঁর অনিচ্ছার একটি কারণ। সাংবাদিক ও কথাসাহিত্যিক দীপক চৌধুরী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে তিনি অতীতে সবসময় জীবন-বাজি রেখে কাজ করেছেন। তিনি বলেন, প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে লেখনীর মাধ্যমে দুর্বার গতি সৃষ্টি করার চেষ্টা করেছি এবং সফল হয়েছি। শাসকদল থেকে নানারকম অর্থ-বিত্ত দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে। লোভ-লালসাকে প্রত্যাখ্যান করার পর মৃত্যুরভীতি দেখানো হয়েছে। কিন্তু আমি নীতির সঙ্গে আপস করিনি।
দিরাই-শাল্লার তৃণমূলের মানুষদের চিন্তা-চেতনা ও সামগ্রীক বিষয়ে জানতে চাইলে দীপক চৌধুরী বলেন, আমি এলাকার বর্ষা মওসুমের ভয়ঙ্ককর চিত্র নিজের চোখে দেখেছি। যোগাযোগ ও যাতায়াত ব্যবস্থা সরেজমিনে দেখেছি। দিরাই-শাল্লার কালিয়াকুটা হাওর, বরাম হাওর, টাংনির হাওর বা ছায়ার হাওর, ভান্ডারবিল পারের মানুষের জীবনযাত্রা ঝুঁকির মুখে। নতুনমুখকে এমপি বানিয়ে জাতীয় সংসদে পাঠাতে চান সহজ-সরল মানুষেরা। তাদের ধারণা এই এলাকায় নৌকাপ্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে হলে যোগ্যপ্রার্থী দিতে হবে।

print

Leave a Reply