বাংলাদেশে পাহাড় ধসের আশঙ্কা

টাইমস আই বেঙ্গলী ডটনেট, ঢাকা : বাংলাদেশের পাহাড়ে যেন বৃষ্টি থামছে না। এক টানা চলছে অবিরাম বৃষ্টি। কখনো ভারি, কখনো মাঝারি, আবার কখনো গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। তাতে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবানে বেড়েছে পাহাড় ধসের শঙ্কা। পাহাড়ি এলাকায় বসবাসরত বাসিন্দাদেও মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। পাহাড় ধসের আশঙ্কায় ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় বসবাসকারীদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিতে অভিযান চালিয়েছে প্রশাসনের লোকজন। একইভাবে অন্যান্য এলাকার পাহাড়ে বসবাসকারীদেরও সতর্ক করেছে প্রশাসন।
জানা গেছে, টানা ভারি বৃষ্টিতে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান জেলার পাহাড়ি এলাকায় বসবাসরত লোকজনের মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। টেকনাফে পাহাড়ের ঢালুতে ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাসরত বেশ কিছু পরিবারকে সরিয়ে নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। শুক্রবার থেকে ভারি বৃষ্টিপাত হচ্ছে। টানা এই বৃষ্টি কয়েক দিন অতিবাহিত হয়েছে। প্রবল বৃষ্টিপাতে কক্সবাজার কক্সবাজার শহর, টেকনাফ, মহেশখালী, উখিয়া ও রামুর বেশ কিছু এলাকার পাহাড় বেশ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ফলে ওই সব এলাকায় পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকিতে বাস করা বিপুল পরিমাণ লোকজন চরম পাহাড় ধ্বসের ঝুঁকিতে পড়ে গেছে।
জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, টানা ভারি বৃষ্টিতে পাহাড় ধ্বসের আশঙ্কা তৈরি হওয়ায় পাহাড়ি এলাকায় ঝুঁকি নিয়ে বাস করা লোকজনকে সতর্ক করা হয়েছে। টেকনাফসহ আরো কয়েকটি এলাকা থেকে অনেক লোকজনকে সরিয়ে আনা হয়েছে। এছাড়া অন্যান্যদের সরে যেতে বিভিন্ন এলাকায় এরই মধ্যে মাইকিং করা হয়েছে।
এদিকে রাঙামাটিতে পাহাড়ে বসবাসরত বাসিন্দারা উৎকন্ঠায় রয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড়ে বসবাসরত বাসিন্দাদের নিরাপদ স্থানে সরে যেতে অব্যাহত রয়েছে জেলা প্রশাসনের সতরকর্তা মূলক মাইকিং। খোলা হয়েছে আশ্রয় কেন্দ্রও। কিন্তু তারপরও পাহাড় ছাড়তে নারাজ পাহাড় বসতির বাসিন্দারা। মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে এখনো পাহাড় পাদদেশে বসবাস করছে কয়েক লাখ মানুষ।
শুক্রবার সকাল থেকে রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শহরের শিমুলতলী, নতুন পাড়া, মনতলা, রাঙ্গাপানি, রির্জাভ, এসপি অফিস সংলগ্ন এলাকা, শহীদ আবদুুল আলী একাডেমী সংলগ্ন ঢাল, পুলিশ লাইন সংলগ্ন ঢাল, স্বর্ণটিলা পাহাড়ের ঢাল, রাজমণিপাড়া পাহাড়ের ঢাল, রেডিও স্টেশনের পাশে শিমুলতলী পাহাড়ের ঢাল, লোকনাথ মন্দির পাহাড়ের ঢাল, আনসার ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড়ের ঢাল, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সংলগ্ন পাহাড়ের ঢাল, চম্পক নগর পাহাড়ের ঢাল, পাবলিক হেলথ পাহাড়ের ঢাল, আমানতবাগ পাহাড়ের ঢাল, মুজিবনগর পাহাড়ের ঢাল এলাকায় ঝুঁকি নিয়ে বসবাস রতদের নিরাপদ স্থানে সড়ে যেতে করা হচ্ছে মাইকিং। একই সাথে এলাকায় এলাকায় সাধারণ মানুষকে সর্তক করতে কাজ করছে রাঙামাটি পৌরসবার ওয়ার্ড কাউন্সিলরা।
এ ব্যাপারে রাঙামাটি জেলা আবহাওয়া অধিদপ্তরের কর্মকর্তা মো. হুমায়ন কবির জানান, সক্রিয় মৌসুমী বায়ু অব্যাহত থাকার কারণে রাঙামাটিতে বৃষ্টিপাত অব্যাত থাকবে। গতকাল শক্রবার থেকে থেমে থেমে মাঝারি বৃষ্টিপাত হচ্ছে এখন পর্যন্ত ৫৮মিলি মিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে।
অপরদিকে, টানা ভারি বৃষ্টিতে চট্টগ্রামে দেখা দিয়েছে পাহাড় ধসের আশঙ্কা। আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার থেকে টানা ভারি বৃষ্টি হচ্ছে। চট্টগ্রাম বিভাগে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে শুক্রবার। শনিবারও ভারি বর্ষণ হতে পারে।
আবহাওয়াবিদ এ কে এম রুহুল কুদ্দুছ জানান, সক্রিয় মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে শনিবার বিকেল ৩টা পর্যন্ত রাজশাহী, ঢাকা, ময়মনসিংহ, সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও ভারি (৪৪-৮৮ মিলিমিটার) থেকে অতি ভারি (৮৯ মিলিমিটারের বেশি) বর্ষণ হতে পারে। ভারি থেকে অতি ভারি বর্ষণের প্রভাবে চট্টগ্রাম বিভাগের পাহাড়ি এলাকার কোথাও কোথাও ভূমিধসের আশঙ্কা রয়েছে।
আবহাওয়াবিদ মো. শহিদুল ইসলাম জানিয়েছেন, মৌসুমি বায়ুর অক্ষের বর্ধিতাংশ উত্তর প্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের উপর সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।
এ অবস্থায় ময়মনসিংহ, ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রংপুর ও খুলনা বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে অতি ভারি বর্ষণ হতে পারে। সারা বাংলাদেশে দিনের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

print

Leave a Reply